19-november-humayun-ahmed

১৯ নভেম্বর ও হুমায়ুন আজাদের নারী

বাংলাদেশ সরকার হুমায়ুন আজাদের নারী বইটি ১৯৯৫ সালের ১৯ নভেম্বর নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। এটি ছিল তৎকালীন সরকারের একটি বিতর্কিত সিদ্ধান্ত। এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। শেষ পর্যন্ত ২০০০ সালের ৭ মার্চ উচ্চ আদালত বইটির নিষেধাজ্ঞা বাতিল করে।

বইটি নিষিদ্ধ করার কারণ হিসেবে সরকার দাবি করেছিল যে, বইটিতে ইসলাম ধর্ম ও নৈতিকতাবিরোধী বিষয়বস্তু রয়েছে। বইটিতে নারীর অধিকার, নারী-পুরুষের সমতা, ধর্মীয় গোঁড়ামি ও কুসংস্কারের বিরুদ্ধে তীব্র সমালোচনা রয়েছে। সরকারের দাবি ছিল যে, এই সমালোচনা ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

বইটি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। লেখক, বুদ্ধিজীবী, সাংবাদিক, ছাত্র-ছাত্রী ও মানবাধিকার সংগঠনগুলো প্রতিবাদ করে। তারা দাবি করে যে, বইটি নিষিদ্ধ করা একটি গণতন্ত্র ও বাকস্বাধীনতাবিরোধী পদক্ষেপ।

শেষ পর্যন্ত ২০০০ সালের ৭ মার্চ উচ্চ আদালত বইটির নিষেধাজ্ঞা বাতিল করে। আদালত বলে যে, বইটিতে প্রকাশিত বিষয়বস্তু ধর্মীয় গোঁড়ামি ও কুসংস্কারের বিরুদ্ধে একটি ন্যায্য সমালোচনা। এই সমালোচনা ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করেনি।

বইটির নিষেধাজ্ঞা বাতিলের পর বইটি পুনরায় প্রকাশিত হতে থাকে। নারী বইটি প্রকাশের পর থেকেই এটি বাংলাদেশে একটি বিতর্কিত বিষয় হয়ে ওঠে। এই বইটিকে নারীবাদী আন্দোলনের একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

নিষেধাজ্ঞার কারণ

বাংলাদেশ সরকার নারী বইটি নিষিদ্ধ করার কারণ হিসেবে নিম্নলিখিত কারণগুলি উল্লেখ করেছিল:

  • বইটিতে নারীদের প্রতি পুরুষদের আচরণকে “অশ্লীল” এবং “কুরুচিপূর্ণ” হিসেবে চিত্রিত করা হয়েছে।
  • বইটিতে নারীর অধিকার এবং নারীর ভূমিকা সম্পর্কে কিছু মতামত প্রকাশ করা হয়েছে যা সরকারের দৃষ্টিতে “অগ্রহণযোগ্য”।
  • বইটিতে কিছু মতামত প্রকাশ করা হয়েছে যা সরকারের মতে “সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে”।

নিষেধাজ্ঞার প্রভাব

নারী বইটি নিষিদ্ধ করার ফলে বাংলাদেশে নারীবাদী আন্দোলন আরো শক্তিশালী হয়ে ওঠে, পায় জনসমর্থন। এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নারীবাদীরা বিক্ষোভ এবং সমাবেশ করে। যার ফলে নারীর অধিকার এবং নারীর ভূমিকা সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পায়।

উপসংহার

বাংলাদেশ সরকার হুমায়ুন আজাদের নারী বইটি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত ছিল একটি বিতর্কিত সিদ্ধান্ত। যার ফলে বাংলাদেশে নারীবাদী আন্দোলন কয়েকগুন শক্তিশালী হয়ে ওঠে। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে নারীর অধিকার এবং নারীর ভূমিকা সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি পায়।

আরো পড়তে পারেন

রকমারি থেকে বইটি কিনতে পারেন। বর্তমানে রকমারিতে মাত্র ৪ টি কপি স্টকে আছে। তাই কিনলে জলদি অর্ডার করুন, ফুরিয়ে যাওয়ার আগে।

Share this article
0
Share
Shareable URL
Prev Post

১৮ নভেম্বর ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

Next Post

২০ নভেম্বর ও টিপু সুলতান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Read next

৩০ নভেম্বর ও বুদ্ধদেব বসু

বুদ্ধদেব বসু ছিলেন একজন বাঙালি কবি, কথাসাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক, নাট্যকার, অনুবাদক, সম্পাদক ও সাহিত্য সমালোচক। তিনি…
30-november-and-buddhadeb-boshu
0
Share